Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

          

সিটিজেন চার্টার

বাংলাদেশের যুবসমাজের বেকারত্ব দূরীকরণের লক্ষ্যে যুবদেরকে বিভিন্ন দক্ষতাবৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ এবং প্রশিক্ষণ পরবর্তী ঋণ সুবিধা প্রদান করে তাদেরকে স্ব-কর্মসংস্থানে নিয়োজিত করার মাধ্যমে মানবসম্পদে রূপান্তরের উদ্দেশ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।
নারায়ণগঞ্জ জেলায় ১৯৯৫ সালে যুব কার্যক্রম শুরু হয়। শুরুতে সোনারগাঁও ও রূপগঞ্জ কার্যালয় স্থাপন করা হয়। জুলাই ১৯৯৭ হতে বন্দর, আড়াইহাজার ও নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় কার্যালয় স্থাপনের মাধ্যমে যুব কার্যক্রম   বিস্তৃত হয়।
বাংলাদেশের যুবসমাজের বেকারত্ব দূরীকরণের লক্ষ্যে যুবদেরকে বিভিন্ন দক্ষতাবৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ এবং প্রশিক্ষণ পরবর্তী ঋণ সুবিধা প্রদান করে তাদেরকে স্ব-কর্মসংস্থানে নিয়োজিত করার মাধ্যমে মানবসম্পদে রূপান্তরের উদ্দেশ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।
নারায়ণগঞ্জ জেলায় ১৯৯৫ সালে যুব কার্যক্রম শুরু হয়। শুরুতে সোনারগাঁও ও রূপগঞ্জ কার্যালয় স্থাপন করা হয়। জুলাই ১৯৯৭ হতে বন্দর, আড়াইহাজার ও নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় কার্যালয় স্থাপনের মাধ্যমে যুব কার্যক্রম   বিস্তৃত হয়।

১। প্রশিক্ষণ সংক্রান্তঃ
যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর নারায়ণগঞ্জ জেলা হতে বেকার যুবদের আত্মকর্মসংস্থানের জন্য নিম্নলিখিত ট্রেডসমূহে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়ে থাকেঃ
(ক) প্রাতিষ্ঠানিক ট্রেড ঃ
কম্পিউটার বেসিক কোর্স (৬ মাস মেয়াদী  ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-এইচ,এস, সি,পাশ),ইলেকট্রিক্যাল এন্ড হাউজ ওয়্যারিং কোর্স (৬ মাস মেয়াদী , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা- এস,এস,সি/অষ্টম শ্রেণী পাশ), রেফ্রিজারেশন এন্ড এয়ারকন্ডিশনিং কোর্স (৬ মাস মেয়াদী, ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-এস,এস,সি/অষ্টমশ্রেণী পাশ), ইলেকট্রনিক্স কোর্স (৬ মাস মেয়াদী, ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-এস,এস,সি/অষ্টম শ্রেণী পাশ), গবাদিপশু ও হাঁসমুরগীপালন, প্রাথমিক চিকিৎসা ও মৎস্য চাষ এবং কৃষি বিষয়ক প্রশিক্ষণ কোর্স (আড়াই মাস মেয়াদী  আবাসিক , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-অষ্টম শ্রেণী পাশ), পোষাক তৈরী প্রশিক্ষণ কোর্স ( ৩ মাস ও ৬ মাস মেয়াদী  , ন্যূনতম  শিক্ষাগত যোগ্যতা-অষ্টম শ্রেণী পাশ), মৎস্য চাষ প্রশিক্ষণ কোর্স ( ১ মাস মেয়াদী  , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-অষ্টম শ্রেণী পাশ) ও ওভেন সুইং মেশিন অপারেটিং  প্রশিক্ষণ কোর্স ( ৬ সপ্তাাহ মেয়াদী  , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-অষ্টম শ্রেণী পাশ)  উল্লেখযোগ্য।

প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ কোর্সের মধ্যে কম্পিউটার বেসিক কোর্সে  ভর্তি  ফি ১,০০০ টাকা, রেফ্রিজারেশন এন্ড এয়ারকন্ডিশনিং কোর্সে ভর্তি ফি ৩০০ টাকা, ইলেকট্রনিক্স কোর্সে  ভর্তি  ফি ৩০০ টাকা, ইলেকট্রিক্যাল এন্ড হাউজওয়্যারিং কোর্সে  ভর্তি  ফি ৩০০ টাকা, পোষাক তৈরী কোর্সে ভর্তি ফি ৫০ টাকা,  ওভেন সুইং মেশিন অপারেটিং  প্রশিক্ষণ কোর্সে ৫০ টাকা এবং মৎস্যচাষ প্রশিক্ষণ কোর্সে ভর্তি ফি ৫০ টাকা হিসেবে নির্ধারিত রয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক আবাসিক প্রশিক্ষণ কোর্সের মধ্যে গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগী পালন, প্রাথমিক চিকিৎসা ও মৎস্য চাষ এবং কৃষি বিষয়ক প্রশিক্ষণ কোর্সে ভর্তি ফি ১০০ টাকা হিসেবে নির্ধারিত রয়েছে। তবে এ কোর্সে প্রশিক্ষণার্থীদেরকে জনপ্রতি প্রতি মাসে ১২০০ (বারশত) টাকা হারে প্রশিক্ষণ ভাতা প্রদান করা হয়।

(খ) অপ্রাতিষ্ঠানিক ট্রেড  (উপজেলা কার্যালয় কর্তৃক পরিচালিত )ঃ

অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণসমূহ স্থানীয় চাহিদার ভিত্তিতে  বিভিন্ন ক্লাব, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বা সুবিধাজনক স্থানে অনুষ্ঠিত হয়। এসবের মধ্যে পশুসম্পদ বিষয়ক বিভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ কোর্স (৭/১০ দিন মেয়াদী , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-পঞ্চম শ্রেণী পাশ), মৎস্যসম্পদ বিষয়ক বিভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ কোর্স (৭/১০  দিন মেয়াদী , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-পঞ্চম শ্রেণী পাশ), কৃষি বিষয়ক বিভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ কোর্স (৭/১০  দিন মেয়াদী , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা- পঞ্চম শ্রেণী পাশ), ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প বিষয়ক বিভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ কোর্স (১৫দিন ও ৭ দিন মেয়াদী , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা- পঞ্চম শ্রেণী পাশ) , পোষাক ও ব্লক বাটিক বিষয়ক প্রশিক্ষণ কোর্স  ( ১ মাস মেয়াদী ও ২১ দিন মেয়াদী  , ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা-পঞ্চম  শ্রণী পাশ) উল্লেখযোগ্য। অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণের জন্য কোন ভর্তি ফি বা কোর্স ফি এর প্রয়োজন হয় না।

২। ঋণ সংক্রান্তঃ
    যুবরা যাতে আত্মকর্মে নিয়োজিত হতে পারে এজন্য প্রকল্প স্থাপনের নিমিত্তে প্রশিক্ষিত যুবদের ঋণ সহায়তা প্রদান করা হয়। এজন্য যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে ঋণ তহবিল রয়েছে। এ তহবিল থেকে যুবদেরকে দু’ধরণের ঋণ প্রদান করা হয়। যথাঃ একক ঋণ ও গ্রুপভিত্তিক ঋণ। একক ঋণের ক্ষেত্রে প্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডে প্রশিক্ষিত যুবকে ৪০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৭৫ হাজার টাকা এবং অপ্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডে প্রশিক্ষিত যুবকে ২০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা ঋণ দেয়া হয়। ঋণ পরিশোধকারী যুবকে এভাবে সর্বোচ্চ ৩ দফা পর্যন্ত ঋণদেয়া হয়। গ্রুপভিত্তিক ঋণের ক্ষেত্রে একজন যুবকে প্রথম দফায় ৮ হাজার এবং সর্বশেষ ৫ম দফায় ১৬ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋণ দেয়া হয়। একক ঋণ মাসিক কিস্তিতে এবং গ্রুপ ভিত্তিক ঋণ সাপ্তাহিক ভিত্তিতে পরিশোধ করতে হয়। নারায়ণগঞ্জে গ্রুপভিত্তিক ঋণের কার্যক্রম শুধুমাত্র রূপগঞ্জ উপজেলায় পরিচালিত।

৩। যুব সংগঠন তালিকাভুক্তি সংক্রান্ত ঃ
    দেশের উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় যুব সংগঠন সহযোগী শক্তি হিসেবে  বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখতে সক্ষম। তাই বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠনসমূহকে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কর্তৃক তালিকাভুক্ত করা হয়। নারায়ণগঞ্জে এ পর্যন্ত তালিকাভুক্ত যুব সংগঠনের সংখ্যা- ১৮৩ টি।

৪। যুব সংগঠনকে অনুদান প্রদান সংক্রান্ত ঃ
    বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠনকে যুব কল্যাণ তহবিল হতে এবং রাজস্ব খাত থেকে অনুদান প্রদান করা হয়। আবেদনকারী যেসব সংগঠনের কার্যক্রম সন্তোষজনক সেসব সংগঠনের প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে ও প্রধান কার্যালয়ে  প্রেরণ করা হয়। মন্ত্রণালয় ও প্রধান কার্যালয় হতে যাচাই বাছাইপূর্বক অনুদান মঞ্জুর হয়।  এ পর্যন্ত অনুদানপ্রাপ্ত যুব সংগঠনের সংখ্যা- ১৮৩ টি।

৫। জাতীয় যুব পুরস্কার সংক্রান্ত ঃ
যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর হতে যে সকল যুবক ও যুব মহিলা প্রশিক্ষণ ও ঋণ গ্রহণ করে আত্মকর্মসংস্থানে সফল হয়ে সমাজে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে সক্ষম হন তাদের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রতিবছর দেশব্যাপী সর্বমোট ১২ জন সফল যুবকে জাতীয় যুবদিবসে যুব পুরষ্কার প্রদান করা হয়। এছাড়া জাতীয় যুব দিবসে জাতীয় পর্যায়ে ৩ জন যুব সংগঠককে পুরস্কার প্রদান করা হয়। নারায়ণগঞ্জ হতে এ যাবত ০৭ (সাত) জন যুব জাতীয় যুব পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

৬। অন্যান্য কার্যক্রম ঃ
যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, নারায়ণগঞ্জ জেলা কর্তৃক পরিচালিত উপরোক্ত কার্যক্রম ছাড়াও যুব সমাজের জন্য নিম্নোক্ত কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হয়ঃ
ক) উদ্বুদ্ধকরণ;
খ) প্রশিক্ষিত যুবদেরকে প্রকল্প গ্রহণে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান;
গ) সামাজিক সচেতনতামূলক বিভিন্ন ইস্যুতে যেমন যৌতুকপ্রথা বিরোধী আন্দোলন, বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিং  রোধ, বই পড়া ও বই উপহার, স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার, প্রজনন স্বাস্থ্য ও এইচ আইভি এইডস বিষয়ক ধারণা প্রদান; পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান ইত্যাদি কার্যক্রমে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণের জন্য কর্মসূচী গ্রহণ এবং তাদের মাধ্যমে বাস্তবায়ন;
ঘ) যুব ক্লাব/যুব সংগঠনের মাধ্যমে বিভিন্ন জনহিতকর কর্মসূচী বাস্তবায়ন ইত্যাদি।

০৭। প্রকল্পসমূহ ঃ     
ক। ইমপ্যাক্ট প্রকল্প ঃ জাপান সরকার (ঔউঈঋ)-এর অর্থায়নে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর বাস্তবায়নকারী সংস্থা হিসাবে ইমপ্যাক্ট (ওহহড়াধঃরাব গধহধমবসবহঃ ড়ভ জবংড়ঁৎপবং ভড়ৎ চড়াবৎঃু অষষবারধঃরড়হ ঃযৎড়ঁময ঈড়সঢ়ৎবযবহংরাব ঞবপযহড়ষড়মু) প্রকল্প-এর কার্যক্রম চলছে। নারায়ণগঞ্জ জেলায় শুধুমাত্র সোনারগাঁ উপজেলায় ২ এপ্রিল ২০০৭ খ্রিঃ হতে এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

 খ। নেটওয়ার্কিং প্রকল্প ঃ সমাপ্ত হয়েছে।
 
৯। কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থান প্রকল্প ঃ
কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে উপজেলা পর্যায়ে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম জোরদারকরণ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ৫টি উপজেলায় কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

০৮। তথ্য সংক্রান্তঃ

যুব উন্নয়ন অধদিপ্তর নারায়ণগঞ্জ  এর প্রশক্ষিণ, ঋণ এবং যে কোন র্কাযক্রম সর্ম্পকতি তথ্য সংগ্রহরে জন্য  নারায়ণগঞ্জরে জালকুড়স্থি উপ-পরচিালকরে র্কাযালয় ও যুব প্রশক্ষিণ কন্দ্রেরে উপ-পরচিালক / ডপেুটি কো-র্অডনিটের / সহকারী পরচিালকরে সাথে এবং উপজলো র্পযায়ে প্রতটিি উপজলোর সংশস্নিষ্ট উপজলো যুব উন্নয়ন র্কমর্কতার সাথে যোগাযোগ করা যতেে পার।ে জলো র্কাযালয়রে ফোন নং- ৭৬৯৬০৮১,৭৬৯০৭৭     যুব প্রশক্ষিণ কন্দ্রেরে ফোন নং-৭৬৮১৩৪৩। তথ্য র্কমর্কতার মোবাইল নং ০১৭১২৫২৮৮৪০